নিরাপত্তা প্রহরী পদের ভাইভা অভিজ্ঞতা / security gurd post real viva


সিকিউরিটি গার্ড / নিরাপত্তা প্রহরী পদের ভাইভা অভিজ্ঞতা শেয়ার করছি, আশা করি আপনাদের উপকারে আসবে এবং ৩য় ও চতুর্থ শ্রেণির সকল চাকরির ভাইভার জন্য এখান থেকে ধারণা পাবেন।





প্রথমে কিছু কথা বলে নেই, ভাইভা পরীক্ষাটা আমার জীবনের প্রথম ছিল যার কারণে অনেক নারবাজ ছিলাম কিন্তু ভাইভা বোর্ড আন্তরিক থাকার কারণে তেমন জটিল মনে হয়নি। সব কিছু স্বাভাবিক ভাবে মানিয়ে নিয়েছিলাম আর চেষ্টা করছিলাম যাই ধরুক নিজেকে ভালভাবে উপস্থাপন করব।
আর যে কথা না বললেই নয় সেটা হল ভাইভার জন্য আলাদা প্রস্তুতি নিতে পারিনি কারণ সামনে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের লিখিত পরীক্ষা ছিল, আর বরাবরের মতো বলব পরীক্ষাটা মেইন, তাই যত ভাল করার  প্রিলিমিনারি পরীক্ষাতে ভাল করার চেষ্টা করবেন।


পদের নামঃ নিরাপত্তা প্রহরী।

প্রতিষ্ঠানের নামঃ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর।

বোর্ডে অবস্থানকালঃ ৫ - ৬ মিনিট।

প্রার্থীর নামঃ মোঃ আবু তাহের।

আমার সিরিয়াল ৬৪ নাম্বারে কিন্তু ন্যাচারলকল  এর কারণে ভাইভাটা হয় একজনের পরে, মানে ৬৫ নাম্বারে।



বেল বাজার সাথেই দরজা খুলে বললাম,
আসতে পারি, স্যার? বোর্ড: আসুন।

প্রার্থী: চেয়ারের কাছে গিয়ে আসসালামু আলাইকুম বলে দাঁড়িয়ে থাকলাম।

এখানে একটা কথা বলে রাখি, দরজার কাছে গিয়ে অনুমতি নিয়ে প্রবেশ করে পরে সালাম দেওয়া বেটার কারণ রুমে ডোকার আগে সাবাই আপনার প্রতি মনযোগ নাউ থাকতে পারে, তাই অনুমতি নিয়ে ভেতরে গিয়ে সালম দিয়ে সবার নজরে আমার চেষ্টা করা খুব জরুরী।


 বোর্ড: সালামের উত্তর দিয়ে বসতে বললেন।

 প্রার্থী: ধন্যবাদ দিয়ে বসলাম।

 বোর্ড: আপনার নাম কী?

 প্রার্থী: আমার নাম মো: আবু তাহের।

বোর্ড: আপনার নামের সাথে মিল আছে এমন একজন ব্যক্তির নাম বলেন।

 প্রার্থী: আমার নামের সাথে মিল আছে এমন একজন ব্যক্তি হলেন কর্নেল আবু তাহের।

 বোর্ড: লেখাপড়া কতদুর করেছেন?



এখানে একটা কথা বলি আপনার যত পড়াশোনা আছে সব এখানে শো করাতে পারেন ( সার্টিফিকেট) তবে চাকরির বয়স যদি শেষের দিগে হয় তবেই নয়ত  যে যোগ্যতা চেয়েছে সেটা দিয়েই আবেদন করা ভাল।

বেশি যোগ্যতা ও বয়স থাকলে তারা বলে আপনার তো চাকরির বয়স অনেক আছে এই চাকরি হলে তো আপনি করবেন না এখানে একটা মাইনাস পয়েন্ট।
আবার চাকরির বয়স যদি শেষের দিগে হয় এবং বুঝিয়ে বলতে পারেন তবে প্লাস পয়েন্ট রয়েছে।



 প্রার্থী: আমি এইচএসসি পাস করেছি।

 বোর্ড: এইচএসসিতে রেজাল্ট কী?

 প্রার্থী: এইচএসসিতে আমার রেজাল্ট জিপিএ ৩.৫০।

 বোর্ড: GPA এর পূর্ণরূপ কী?

 প্রার্থী: GPA এর পূর্ণরূপ হলো Grade Point Average.

 বোর্ড: আপনার বাড়ী কোথায়?

 প্রার্থী: আমার বাড়ি গাইবান্ধা।

 বোর্ড: গাইবান্ধা জেলায় উপজেলা কয়টি ও কী কী?



 প্রার্থী: গাইবান্ধা জেলায় উপজেলা ৭ টি।

 সেগুলো হলো সাদুল্লাপুর,
পলাশবাড়ী,
 গোবিন্দগঞ্জ, 
ফুলছড়ি, 
সাঘাটা, 
সুন্দরগঞ্জ ও সদর উপজেলা।


 বোর্ড: আপনার এলাকায় তো চাঁদে মানুষ দেখা যায়।

 সত্যি নাকি? প্রার্থী: না, স্যার।

 বোর্ড: নিরাপত্তা প্রহরীর কাজ কী?

 প্রার্থী: নিরাপত্তা প্রহরীর কাজ হলো অফিসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা,
 অফিসে আসা ব্যক্তি ও গাড়ীর প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রন ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা,
 অফিসে আসা ভিজিটরদের রেজিষ্টার মেইনটেন করা,
 অফিসে আসা যাওয়া পণ্য বা মালামালের খোঁজখবর রাখা,
 পাহারাকালীন কাউকে সন্দেহ হলে বা অস্বাভাবিক আচরণ করলে চ্যালেঞ্জ করা ইত্যাদি।

 বোর্ড: এসব কাজ করতে পারবেন?

 প্রার্থী: হ্যাঁ, স্যার। বোর্ড: ঠিক আছে, এবার আসেন।

 প্রার্থী: ধন্যবাদ ও সালাম দিয়ে প্রস্থান।


 

আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

tnx for commet..

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট দেখুন

( সিভিল সার্জনের কার্যালয়) স্বাস্থ্যসহকারী পদের প্রশ্ন সমাধান

             স্বাস্থ্যসহকারী পদের প্রশ্ন সমাধান           ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীর নিয়োগ পরীক্ষা                  পদঃ স্বাস্থ্যসহকারী...

সবচেয়ে চাহিদার পোস্ট গুলো