২৪২২ পদে র্নাস নিয়োগ সার্কুলার / নার্স নিয়োগ রীক্ষার চূড়ান্ত প্রস্তুতি সাজেশন / সিলেবাস / nursing job circular and suggetion

 ২৪২২ পদে র্নাস নিয়োগ সার্কুলার / নার্স নিয়োগ পরীক্ষার চূড়ান্ত প্রস্তুতি সাজেশন / সিলেবাস / nursing job circular and suggetion.

আমরা সাবাই অবগত আছি  পিএসসি এর মাধ্যমে ২৪২২ পদে সরকারি ভাবে নার্স নিয়োগ দেওয়া হবে, নার্স নিয়োগ সার্কুলার যেহেতু অনেক কম হয় তাই এই বিষয়ে অনেক অজানা তথ্য আমরা বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করবো এবং এর প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করবো, আশা করছি নার্সিং নিয়োগ পরীক্ষার বিষয় নিয়ে আর কোনো অজানা থাকবে না।

প্রথম যে কথা না বললেই নয়, নার্সিং কোর্স শেষ করার পরে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী প্রাইভেট জবে জীবনের ক্যারিয়ার শুরু করে, কারণ সরকারি ভাবে নিয়োগ সার্কুলার কম হয়, তাই সবচেয়ে  কম প্রার্থী সার্কুলার হলেও এই পরীক্ষার সঠিক প্রস্ততি কিভাবে নিতে হয় জানে না। আজ আমরা একদম র্সট সিলেবাসে বিস্তারিত ভাবে বলার চেষ্টা করবো।

সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে আমরা ব্যাসিক কিছু প্রশ্নের উত্তর পর্ব প্রথমে শেষ করবো।


সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগ পরীক্ষা কয় ধাঁপে হয়?

উত্তরঃ এই নিয়োগ পরীক্ষা সাধারনত চার ধাঁপে হয়, তবে প্রার্থীর সংখ্যা কম থাকলে তিন ধাঁপে হয়।

প্রথম এমসিকিউ, পরে লিখিত  এবং লিখিত পরীক্ষায় যারা টিকবে তাঁদের ব্যববহারিক পরীক্ষা দিতে হবে, তার পরে ভাইভা পরীক্ষা হয়।

এর পরে চূঢ়ান্ত রেজাল্ট প্রকাশ করে।


নিয়োগ পরীক্ষা যেভাবে

 সর্বপ্রথম ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

যারা এই পরীক্ষায় পাশ করবে বা কলিফায় হবে তাঁদের ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা দিতে হবে।

 এমসিকিউ পদ্ধতিতে এক ঘণ্টাব্যাপী হবে। প্রার্থী প্রতিটি শুদ্ধ উত্তরের জন্য ১ নম্বর পাবেন। আর প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত নম্বর থেকে ০.৫০ কাটা যাবে।


বাছাই পরীক্ষা হবে ৪ টি বিষয়েঃ

ক) বাংলা-২০

খ) ইংরেজি-২০

গ) সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি)-২০

ঘ) সংশ্লিষ্ট টেকনিক্যাল/প্রফেশনাল বিষয়ে-৪০ নম্বরসহ সর্বমোট ১০০ নম্বরের।


প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ২০০ নম্বরের চার ঘণ্টার লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

 প্রিলি, লিখিত ও ব্যাবহারিকে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ৫০ নম্বরের ব্যাবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।  সরাসরি ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা দিয়ে তারপর ভাইভা বোর্ডের মুখোমুখি হতে হবে।


নার্স নিয়োগের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রস্তুতি

সিলেবাম ভিত্তিক সাজেশনের আগে আমরা র্সট সাজেশন নিয়ে কথা বলি, বাংলাদেশের যে কোন চাকরি পরীক্ষার প্রস্তুতির আগে আপনাকে বিসিএস বিগত সালের প্রশ্ন পড়তেই হবে কারণ এখান থকে আপনি ৮০% প্রশ্ন হুবহু কমন পাবেন।

তাই নার্স নিয়োগ পরীক্ষার বিগত সালের প্রশ্ন গুলো সমাধান প্রথমে করবেন কারণ বিগত সালের প্রশ্ন গুলো সমাধান করলে আপনি বুঝতে পারবেন কোন গুলো পড়বেন আর কোন গুলো বাদ দিবেন এতে নিজেই একটা সিলেবাস করে নিতে পারবেন।

আরো একটা র্সট টেকনিকে প্রস্ততি নিতে পারেন।

বিগত সালের পিএসসির যত প্রশ্ন আছে পড়ে নিতে পারেন এতে আরো সহজ হবে কারণ এই প্রশ্ন পিএসসি করে আর প্রশ্ন প্যাটার্ন বোঝার জন্য বিগত সালের সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রশ্ন দেখতে পারেন।


এর পরে বিগত সালের বিসিএস প্রশ্ন গুলো ভালো করে ব্যাখ্যাসহ সমাধান করে ফেলুন।

অনেকেই আবার বলতে পারেন এখানে তো অনেক প্রশ্ন, কিভাবে শেষ করবো? আসলে বিসিএস এর সব গুলো প্রশ্ন আপনাকে পড়তে হবে না।

নিচের সাবজেক্ট  গুলো ভাল করে ব্যাখ্যাসহ পড়েনিন।

ক) বাংলা-২০

খ) ইংরেজি-২০

গ) সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি)-২০

ঘ) সংশ্লিষ্ট টেকনিক্যাল/প্রফেশনাল বিষয়।

আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলছি  বিগত বিসিএস থেকে যে প্রশ্ন আপনি কমন পাবেন দেখবেন চাকরি পাওয়ার মত নাম্বার পেয়েগেছেন এবং প্রিলি অনায়েশে পাশ করেছেন আনশাআল্লাহ্।

নিজেকে আরো স্ট্রং ভাবে প্রস্তুত করতে নিচের অধ্যায় গুলো ২ দিন করে সময় দিয়ে পড়তে পারেন।

 বাংলা প্রথম পত্রঃ  

কবি-সাহিত্যিক সম্পর্কে,

কবি-সাহিত্যিকদের জন্ম-মৃত্যু সাল, 

তাঁদের জীবনকাহিনি, যেসব কাব্যগ্রন্থ, 

উপন্যাস, 

নাটক প্রভৃতি রচনা করেছেন,

 এগুলোর গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র ও লেখকের নাম জানতে চাওয়া হয়।

না বুঝে মুখস্থ করা যাবে না।


ব্যাকরণ অংশ থেকে পরিভাষা,

 এককথায় প্রকাশ, 

বাগ্ধারা,

 সন্ধি,

 কারক ও বিভক্তি,

 শব্দ

যুক্তবর্ণ প্রভৃতি থেকে প্রতিবছর প্রশ্ন এসে থাকে।

 তাই এ টপিকগুলো গুরুত্বসহকারে পড়ে বাকি টপিকগুলোও পড়তে হবে।

আর বিগত বিসিএস প্রশ্ন গুলো যদি ব্যাখ্যাসহ পড়তে পারেন তবে িএসব কিছু লাগবে না।


প্রাসঙ্গিক টেকনিক্যাল বিষয় :

নার্সিং পেশায় প্রায়োগিক ক্ষেত্রে কোনবিষয়গুলো বেশি কাজে লাগে সেসব বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে; যেমনঅ্যানাটমি,

ফিজিওলজি,

 কমিউনিটি অব নার্সিং,

 অ্যাডাল্ট নার্সিং,

 ফান্ডামেন্টাল নার্সিং,

 সাইকোলজি, 

মেন্টাল হেলথ, অর্থোপেডিক,

মিডওয়াইফারি, 

ক্লিনিক্যাল প্র্যাকটিস,

 নিউট্রিশন অ্যান্ড নিউট্রিশনাল সাপোর্ট,

 পেডিয়াট্রিক অ্যান্ড নিউ বর্ন নার্সিং,

 ইন্টার্নশিপ অথবা পেশাগত ক্লিনিক্যাল ডিউটির বাস্তব জ্ঞান ধারণা রাখতে হবে।


ইংরেজি : 

Sentence.

 Narration, 

Voice Change, 

ppropriate Word, 

Appropriate Preposition, 

Idioms and Phrases  এ ছাড়া গ্রামারের অন্যান্য বিষয়ও দেখতে হবে।

 এ বিষয়ে প্রস্তুতির জন্য পিসি দাসের লেখা Applied English Grammar and Compositions বইটা বেশ কাজে দেবে। ইংরেজির চর্চা প্রতিদিনই রাখতে হবে। কেননা প্রফেশনাল বিষয়ে অনেকেই ভালো করলেও ইংরেজিতে তেমন নম্বর তুলতে পারেন না। তাই ইংরেজি বিষয়টা প্রার্থীদের পার্থক্য গড়ে দিতে পারে।


সাধারন জ্ঞানঃ

সাধারন জ্ঞান নিয়ে বললে শেষ হবে না কিন্ত সাম্প্রতিক পড়ে সময় নষ্ট না করে অন্য দিগে পড়া সবচেয়ে ভাল কারণ সাম্প্রতিক আসে মাত্র একটা থেকে দুটা।

আর বিগত সালের বিসিএস প্রশ্ন ব্যাখ্যাসহ পড়লে আর কিছুর দরকার নেই।

এখন আপনেরা প্রশ্ন করতে পারেন সিনিয়র স্টাফ নার্স নিয়োগের জন্য কোন বই গুলো ভালো হবে।

প্রথম বিসিএস ডাইজেস্ট পড়েন এখানে সকল প্রশ্ন ব্যাখ্যাসহ পাবেন এছাড়া পিএসসির প্রশ্ন র্ব্যাংক ও পাবেন।

আর বিগত সালের নার্স  নিয়োগ পরীক্ষার যদি প্রশ্ন দরকার হয় গুগলে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন।

আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

tnx for commet..

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট দেখুন

( সিভিল সার্জনের কার্যালয়) স্বাস্থ্যসহকারী পদের প্রশ্ন সমাধান

             স্বাস্থ্যসহকারী পদের প্রশ্ন সমাধান           ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীর নিয়োগ পরীক্ষা                  পদঃ স্বাস্থ্যসহকারী...

সবচেয়ে চাহিদার পোস্ট গুলো